Connect with us

সাক্ষাৎকার

কারা গান শুনছে? ভুতে নাকি জ্বিনে : আসিফ আকবর

Published

on

আসিফ আকবর

সংগীতের রাজপুত্র আসিফ আকবর। বর্তমান সময়ে বেশ ব্যস্ত তিনি, একের পর এক নতুন গান শ্রোতাদের উপহার দিচ্ছেন। সংগীত ইন্ডাস্ট্রিতে দাপটের সঙ্গে কাজ করছেন ১৬ বছর ধরে। কথা বলেছেন সংগীতের বর্তমান অবস্থা ও নানা দিক নিয়ে। 

  • তারেক আনন্দ 

চুপচাপ বসে আছেন আসিফ আকবর। তার অফিস রুমে ঢুকতেই তিনি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন- কী খবর, কেমন আছ? অডিও ইন্ডাস্ট্রির কী অবস্থা?

প্রশ্ন তো আমিই করব। আপনি করছেন কেন?

বলো, তোমার অভিজ্ঞতা দিয়ে বলো?

আমি তো মনে করি এ বছরটা ভালোই ছিল ইন্ডাস্ট্রির জন্য। অনেক অনেক গান প্রকাশ হলো। শিল্পীদের সম্মানী বেড়েছে। সিনিয়র শিল্পী থেকে শুরু করে এ প্রজন্মের শিল্পীরাও গান প্রকাশ করেছে। তবে গত রোজার ঈদের তুলনায় কোরবানির ঈদে একটু কম গান প্রকাশ হয়েছে। এ ধারাবাহিকতা যদি বজায় থাকে তাহলে অবশ্যই সংগীতের জন্য ভালো।

এবার আপনি বুলন। ইন্ডাস্ট্রির কী অবস্থা?

প্রথমত, এটা শেয়ার মার্কেট না। এটা গানের জায়গা। এখানে কেউ গান গেয়ে মজা পায়, কেউ করাইয়ে মজা পায়, কেউ লিখে মজা পায়, কেউ সুর করে। কারোর টাকা লাগে। আবার অনেকে টাকা ছাড়াও কাজ করে।

মূল সমস্যাটা কোথায়?

মূল সমস্যা হলো প্রোডিউসারদের মানসিকতা। একটা সময় ছিল সিডি ক্যাসেট বিক্রি হলে এককালীন আর্টিস্টরা ভালো টাকা পেত। বা পরবর্তীতে কাজের ক্ষেত্রগুলি থাকত। এখন সারা দুনিয়ায় এক নিয়মে চলছে, আমাদের দেশের প্রোডিউসারগুলি অন্য নিয়মে। যেহেতু পৃথিবীর বাইরে আমরা না, পৃথিবীর নিয়মেই আমাদের চলতে হবে। প্রধান সমস্যা হলো আমাদের গীতিকার সুরকার শিল্পীদের অনেক লোভ। কোম্পানি পাইলে ঘোড়ার মতো কাজ করে। এককালীন টাকা নিতে সমস্যা নেই, তাহলে সেই পরিমাণই নাও।

আপনিও তো কাজ করছেন। আপনি কী নিয়মের বাইরে?

আমি প্রতি ভয়েস পেমেন্টই নিচ্ছি দেড় লাখ টাকা। ফিল্মের গান করা থেকে বিরত ছিলাম। এ সমস্ত কথাবার্তার কারণে আট বছর গান করিনি। অধিকার কেউ তো চায় না, তাকে দিবে কেন। ফিল্মের গান করতে সমস্যা নেই। আমার সঙ্গে কাজ করতে হলে রয়্যালিটি দিতে হবে। রয়্যালিটি না দিলে আমি প্রতি গানে দেড় লাখ টাকা নিচ্ছি। ঠিকই আমি রয়্যালিটি নিয়ে ফিল্মের জন্য গান করছি।

অন্য শিল্পীরা কেন পারছে না?

লোভ। লোভের কারণে। শিল্পীদের ছোটখাটো লোভকে পুঁজি করে ৬০ বছর মেয়াদি গান করছে কোম্পানিগুলো। শিল্পীরা রাইটস হারাচ্ছে, গীতিকার সুরকার রাইটস হারাচ্ছে। কোম্পানি ৬০ বছর কেন, আগামী বছর টিকবে কিনা সন্দেহ আছে। সিস্টেমের বাইরে কোনো কিছুই চলতে পারে না। গানের বাজারের অবস্থা খুব ভালো হচ্ছিল। প্রডিউসার লোভ সামলিয়ে যদি ঠিক মতো সবাইকে হিসাব দিত, তাহলে ইন্ডাস্ট্রি ঠিকই শক্তভাবে দাঁড়িয়ে থাকত।

আগামী বছরও টিকবে না কেন, একটু খুলে বলবেন?

অডিও কোম্পানি মুঠোফোন কোম্পানিগুলোতে কনটেন্ট বাড়ালো। দীর্ঘমেয়াদি চিন্তা না করে স্বল্পমেয়াদি ব্যবসার চিন্তা করতে গিয়ে ধরা খাইছে। কোম্পানির সঙ্গে খাতির করে প্রমোশন নিয়ে ৮ লাখ, ১০ লাখ, ২০ লাখ টাকা পেয়েছে নগদে। এখন এটা বন্ধ হয়ে গেছে। গ্রামীণফোনে অলরেডি তাদের রেভিনিউ থেকে ৪০ পার্সেন্টের মতো মাইনাস হয়ে গেছে। যে পরিমাণ ইনভেস্ট করছে তা তো উঠে আসেনি। সামনে অনেক আইনকানুন হচ্ছে। কোম্পানিদের পেপার্স সাবমিট করতে করতে অবস্থা খারাপ হয়ে যাবে।

গানতো ঠিকই শুনছে শ্রোতারা। ইউটিউবে সার্চ দিলে একটি গানের এক কোটি, পঞ্চাশ লাখ ভিউ।

দেখতেছি আর হাসতেছি। প্রোমোশন করে, বুস্ট করে এসব গানকে ১ কোটি, পঞ্চাশ লাখ ভিউ বানানো যায়। ওই কোটি দর্শক কারা? কারা গান শুনছে? ভুতে নাকি জ্বিনে। আমি তো শুনি না। আমি তো শুনছি ‘মধু হই হই বিষ খাওয়াইলি’।

গান প্রচারের স্বার্থে, বুস্ট করার পক্ষে কী আপনি নন?

আমি অবশ্যই বুস্ট করার পক্ষে, প্রচারের স্বার্থে। তার মানে এই নয়, প্রমোশন করে শিল্পীর সফলতা, গুণাগুণ, অবস্থান মূল্যায়ন করা। বুস্ট করে গান পৌঁছাতে গিয়ে ক্রেডিট নেওয়া যাবে না যে, ১ কোটি ছাড়িয়ে গেল! আমার গানের ৬ লাখ শ্রোতা যদি বুস্ট ছাড়া শুনে তাহলে এতেই আমি খুশি। এই ৬ লাখ শ্রোতাই আমার গানটা শুনেছে। আইয়ুব বাচ্চু, জেমস, হাদি ভাই বা আরও যারা সংগীতশিল্পী আছেন, তারাতো শত শত গান নিয়ে বসে আছেন। কই তারা তো প্রমোশন চাচ্ছে না।

আমাদের দেশে ভালো মানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে না কেন?

প্রথমত, প্রোডিউসারদের গুণগত মান নেই। শিক্ষাদীক্ষা, দূরদর্শিতার অভাব। বাইরের দেশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলিকে ফলো করতে হবে। আমরা কিন্তু সবই জানি, সবই বুঝি। ভেনাস, এইচএমভিকে ফলো করলাম, কিন্তু তাদেরটা কিছুই মানলাম না। পেশাদারিত্বের মধ্যে কেউ নেই। পেশাদারিত্ব না থাকলে সেই ইন্ডাস্ট্রি দাঁড়াতে পারবে না। ধরো, কোম্পানি গান করবে অমুক শিল্পীকে ডাকলেন- ভাই আসেন, দুইটা গানে ভয়েস দিয়ে যান ৮০ হাজার টাকা নিয়ে যান। শিল্পী কিন্তু ভয়েস দিয়ে টাকা নিয়ে চলে আসতেছে। তাতেই সে খুশি। এককালীন অল্প টাকাতেই খুশি। শিল্পী, সুরকার, গীতিকার কারোরই কোনো রাইটস নাই গানের। আমরা আগে কি করতাম। এককালীন ১০ লাখ, ২০ লাখ টাকা নিয়েছি একটি অ্যালবামের জন্য। দেখা গেল ওই অ্যালবামটা বিক্রি হয়েছে ৫ লাখ কপি। যদি ব্যবসা করত ৫০ লাখ তাহলে ওরা নিত ২৬ লাখ আমি নিতাম ২৪ লাখ। মনমানসিকতা ঠিক না থাকলে কোনো প্রতিষ্ঠানই টিকে থাকবে না।

আর্ব এন্টারটেইনমেন্টও আপনার প্রতিষ্ঠান। আপনি নিজেও তো করতে পারেন?

আর্ব এন্টারটেইনমেন্ট কাজ করে না তা নয়, তরুণ মুন্সীর কাজ করছি, সোহেল মেহেদীর সঙ্গে কাজ হচ্ছে। অনেকেই করছেন। প্রডাকশন নিতে পারি। আমাদের কোনো সমস্যা নেই। আমরা কোনো রাইট নিচ্ছি না। আমার চ্যানেলে প্রকাশ করছি। গানের যা আয় হবে তারপর সব হিসেব বুঝিয়ে দেওয়া হবে। যেমন কাইনেটিং কিন্তু ব্যবসা করছে, তারাও হিসেব বুঝিয়ে দিচ্ছে। এ ধরনের কনটেন্ট আরও বাড়বে, এটা বাংলাদেশে অনেক ডেভেলপ করবে। বাংলা ঢোল পজেটিভ কাজ করছে। অনলাইনের জন্য অনেক প্রোডিউসার তৈরি হবে। তারা যদি ভাবে কনটেন্ট নিয়ে আগামী বছর কেটে দিবে এটা ভুল।

আপনার গানের ব্যস্ততা কেমন?

আমি পুরোদমে কাজ করছি। এ বছর ৪৪টার মতো গান প্রকাশ করছি। গত সপ্তাহে অলরেডি দুইটি প্রকাশ করলাম। আগামী সপ্তাহে আসছে তিনটা। সব গানই আমার ইউটিউব চ্যানেল ‘আসিফ’ থেকে শুনতে পাবেন শ্রোতারা। ফরিদ আহমেদের সুর, সংগীতে ৬টি, তরুণ মুন্সীর একটি প্রজেক্টে ৬টি, শ্রী প্রীতম কাজ করছে তিনটি। রাজেশ ও প্রদীপ সাহার ৬টি গানের কাজ করছি। এগুলো চলছে ধীরে ধীরে প্রকাশ হবে।

Dhaka Attack Unreleased Song

Advertisement
কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী
সৃজন মিউজিক11 months ago

কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী (ভিডিও)

Praner Giutar
নতুন গান2 years ago

ভালোবাসা দিবসে দুই বাংলার মিশ্রণে ‘প্রাণের গীটার’

প্রাণের গীটার
নতুন গান2 years ago

মাহফুজ ইমরানের‌ এক বছরের সাধনার ফসল ‘প্রাণের গীটার’ (ভিডিও)

কণ্ঠশিল্পী শাহজাহান শুভ
সৃজন মিউজিক2 years ago

শাহজাহান শুভ’র ‘কথামালা’ গান অন্তর্জালে

ওমরসানী, শাকিব খান ও জায়েদ খান
বিনোদন2 years ago

শাকিব খানের কাছে ক্ষমা চাইলেন জায়েদ খান

নতুন গান2 years ago

রোহিঙ্গাদের নিয়ে গান গাইলো অবস্‌কিওর

সৃজন মিউজিক2 years ago

প্রকাশ হলো ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির অরিজিত সিংয়ের সেই গান

ব্যান্ড সঙ্গীত2 years ago

শাকিরার নতুন মিউজিক ভিডিও ‘পেরো ফিয়েল’

মিউজিক ভিডিও2 years ago

তানজীব সারোয়ারের নতুন গান

মিউজিক ভিডিও2 years ago

ইউটিউবে কুমার বিশ্বজিতের নতুন গান ‘জোছনার বর্ষণে’

Trending