Connect with us

সৃজন মিউজিক

বাংলা গান বাণীনির্ভর

Published

on

বাংলা গানকে যারা এ সময়ে ভিন্নমাত্রায় পৌঁছে দিয়েছেন তাদের অন্যতম হলো শহীদুল্লাহ ফরায়জী। গান ও তার দীর্ঘ জীবনের নানা বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানাচ্ছেন ইমরান হোসেন

ইমরান হোসেন: সঙ্গীতপ্রেমী হওয়ার জন্য নিজেকে কীভাবে তৈরী করেছেন?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : পৃথিবীতে প্রতিটি মানুষ নিজের প্রয়োজনে শিক্ষ নেয়। নিজেকে সমৃদ্ধ করতে শিক্ষার অনুসন্ধান তিন ভাবে করতে পারে মানুষ। এক. প্রকৃতি থেকে। দুই. মানুষের মাধ্যমে। তিন. বই পড়ে। আমি প্রয়োজনে তিনটি মাধ্যমকেই ব্যবহার করি। আপন আত্মাকে সমৃদ্ধ করতে জ্ঞানের খোঁজ আমি প্রতিনিয়ত ছুটে ফিরি। যেমন, পৃথিবীর সমস্ত প্রাণী নিজেকে বাঁচাতে আকূল চেষ্টা করে যায়। আমিও টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে পথে, ঘাটে, হাটে খুঁজে বেড়াই মনের আহার। করি সৌন্দর্যের অনুসন্ধান। খুঁজি আত্মার শান্তি। ছাড়ি স্বস্তির নিঃশ্বাস।

ইমরান হোসেন : আমরা জানি অনেকের ভিড়ে আপনি ব্যতিক্রমী জীবন যাপন করেন। অধিকাংশ সময় কাটান বই পড়ে। বইপ্রেমী কীভাবে হলেন?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : সে অনেক আগের কথা। একদিন আমি বাংলাবাজারের দিকে হাঁটছিলাম, পকেটে ছিল ষাট টাকা। রাস্তায় দেখি বইয়ের দোকান। প্রথমেই চোখ আটকে যায় দস্তভয়েস্কির ‘বঞ্চিত লাঞ্চিত’বইটির দিকে। দাম আশি টাকা হলেও পকেটে থাকা ষাট টাকায় বইটি কেনার সুযোগ হয়। পাগলের মতো পড়ে শেষ করি। ক্রমে নিজের ভিতর পাল্টে যাই। এক ধরনের উম্মাদনা পেয়ে বসে। হয়ে উঠি বইপ্রেমী, বইপাগল কিংবা বইয়ের পোকা।

ইমরান হোসেন : চব্বিশ ঘন্টার একটা দীর্ঘসময় আপনার বইয়ের সাথে কাটে। কোন্ বইগুলো বারবার পড়েন? বইয়ের ভেতরের বার্তা কতটা ভাবায় আপনাকে?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : ম্যাক্সিম গোর্কির ‘মা’ ছাড়াও একসময় পড়া হয় বেশকিছু রাশিয়ান বই। মুগ্ধতায় আবিষ্ট করে টলস্টয়। জীবনের আদর্শ লেখক হয়ে যায় রাশিয়ান এই সাহিত্যিক। নিজের প্রয়োজনে বহুবার পড়েছি ‘আন্না কারেনিনা’। সময় পেলে এখনো পড়ি আমি। ভালো লাগে।

ইমরান হোসেন : একটা জীবন কাটিয়ে দিয়েছেন-দিচ্ছেন গান, কবিতা, বইয়ের সাথে। কীসের টানে, কার অনুপ্রেরণায় সাঁতার কাটেন সাহিত্য সাগরে?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : ব্যক্তি-পরিবেশ ও সমাজ জীবনে মানুষের কষ্ট, উচ্চবিত্তের অবহেলা ও রাষ্ট্রের নিষ্ঠুরতা মুক্ত পরিবেশ চেয়েছিলাম। বিপ্লবী হবার ইচ্ছা থাকলেও সুযোগ হইনি, হতে পারিনি। চেষ্টা না থামিয়ে মানুষকে শৃঙ্খলিত করতে, উজ্জীবিত করতে লিখতে শুরু করি গান। চেষ্টা করেছি- মানুষকে আত্মিকভাবে পরিশীলিত করতে। সময়ের প্রয়োজনে সত্য সুন্দর ছড়িয়ে দিতে। কতটুকু পেরেছি তার হিসেব-নিকেশ পাঠকের হাতে। আমি শুধু বলব, আমার সকল গান লেখার উৎস ‘নৈতিকতা’।

ইমরান হোসেন : অনেকের চোখে এই সময়ের অদ্বিতীয় গীতিকবি আপনি। প্রথম লেখা গান ও পরবর্তী সময়ের গান কারা গাইছে, একটু জানতে চাই।
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : আমার জীবনের প্রথম লেখা জনপ্রিয় গান-‘সোনা দানা, দামি গহনা।’ গানটি মতিন রহমানের ‘মাটির ফুল’ সিনেমায় ব্যবহার করা হয়। তারপর আসিফের কণ্ঠে- ‘অপরুপা তুমি অপরুপা’, ‘দু’চোখ আমার শত্রু হলো, কেন দেখলাম তারে।’ বাংলাভাষাভাষি সব মানুষের কাছে প্রিয় ‘চন্দ্র সূর্য যত বড় আমার দুঃখ তার সমান,’ ‘আমার মন্দ স্বভাব জেনেও তুমি চাইলে আমারে’, ‘নষ্ট জীবন দিয়ে কি আর আমি করবো,’ ‘তুমি দুঃখ দিতে খুঁজে বেড়াও আমারে’ ইত্যাদি। আমার জনপ্রিয় অধিকাংশ গান গেয়েছেন- রুনা লায়লা, বারি সিদ্দিকী, সাবিনা ইয়াসমিন, আইয়ুব বাচ্চু, কুমার বিশ্বজিৎ, মনির খান, কনকচাঁপা, এস ডি রুবেল, আসিফ আকবর, কুমার বিশ্বজিৎ, ডলি সায়ন্তনি, সামিনা চৌধুরীসহ দেশে বিদেশের অনেকেই গেয়েছেন আমার গান।

ইমরান হোসেন : আপনার গানে জীবনের গল্প থাকে। থাকে এক ধরনের ফিলোসফিও। কেমন করে এসব ধারন করেছেন আপনি?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : মূলত বাংলা গান বাণীনির্ভর। যে গানের সুর ও বাণী মানুষের হৃদয়কে স্পর্শ করে, সে গান বেঁচে থাকে। গান মানুষের অন্তরাত্মাকে জাগিয়ে তোলে, নৈতিকতা জাগিয়ে তোলে। গান জাতীয় চেতনার মান নির্ধারণ করে। গান যত সমৃদ্ধ হবে মানুষের নৈতিক চরিত্র এবং জাতীয় চেতনাও তত সমুদ্ধ হবে। অনেকে মনে করেন গান নিয়ে এতো ভাবনার কি আছে? গান তো গানই। আমি মনে করি- সংস্কৃতির প্রকাশের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে গান। তাই গান নিয়ে নিরন্তর গবেষনার শেষ নেই আমার। ক্ল্যাসিক ঢং এবং ফোকগানের সংমিশ্রণে নতুন গান নিমার্ণের চেষ্টা করে যাচ্ছি দীর্ঘদিন ধরে। এ ফিলোসফিটা দেশের প্রতি দায় এবং চেতনা থেকেই ধারণ করি।

ইমরান হোসেন : আপনি যা কিছু বলতে চান, তা কি সব গানের ভেতর দিয়ে বলতে পারেন?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : গানটা আসলে অনেক বড় বিষয়। ইচ্ছা করলেই সব কিছু বলা যায় না। তবে কাছাকাছি যাওয়া যায়। কখনো কখনো অতৃপ্তিও থেকে যায়।

ইমরান হোসেন : বাংলা গানের জগতে প্রকৃতভাবে মোহিত হওয়ার মতো গান খুব বেশী চর্চা হচ্ছে না কেনো? বা দিন দিন যে হারায়ে যাচ্ছে। এসব বিষয়কে কীভাবে নেন আপনি?
শহীদুল্লাহ ফরায়েজী : দিন দিন হারাতে বসছে তা মনে হয় প্রকৃত সত্য নয়। এখনো বাঙালির মননে লোক ঐতিহ্যের গান ভালমতো প্রভাব বিস্তার করে আছে। কিন্তু সামাজিক অস্থিরতা, মূল্যবোধের অবক্ষয়, নানান দূর্ঘটনার আলোকে এ প্রেক্ষিতগুলোকে বিবেচনা করতে হবে। তবেই আপনার প্রশ্নের প্রকৃত উত্তর খুঁজে পাওয়া যাবে, তা না হলে উত্তরটা একরৈখিক ও একপেশে হয়ে যাবে।

ইমরান হোসেন : সাক্ষাৎকারের জন্য সময় দেয়ায় ধন্যবাদ জানিয়ে আপনার কাছে সর্বশেষ প্রশ্নটি করতে চাই. এখন কীভাবে সময় কাটে আপনার? আগামীর স্বপ্নইবা কী?
শহীদুল্লাহ ফরায়জী : তোমাকে এবং সৃজনমিউজিক পরিবারকেও ধন্যবাদ। এখন আমার সময় কাটে বই পড়ে, আর শুধুই লেখালেখি করে। এর বাইরে কোনো কাজ করার ইচ্ছা আমার নেই, এ জীবনে করিওনি। তবে এখন মাঝে মাঝে যেতে হয় বিভিন্ন টিভি অনুষ্ঠানে। অংশ গ্রহন করতে হয় সেমিনার, সিম্পোজিয়াম ও সামাজিক অনুষ্ঠানে। ব্যক্তিগত ভাবে মানুষের মাঝে থাকতে ভালো লাগে। ভালো লাগে মানুষের ঘনিষ্ঠ হতে। কাছে গিয়ে মনের কথা জানতে। আর আমার ইচ্ছা- জীবনের শেষদিন পর্যন্ত মানুষের হৃদয়ের ভালো দিকটা অনুসন্ধান করা। খুঁজে ফিরি মানব জীবনের অনপম সৌন্দর্যসমূহ। কী অপরুপ মহান সৃষ্টি এ বিশ্বলীলা।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Dhaka Attack Unreleased Song

Advertisement
কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী
সৃজন মিউজিক2 years ago

কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী (ভিডিও)

Praner Giutar
নতুন গান3 years ago

ভালোবাসা দিবসে দুই বাংলার মিশ্রণে ‘প্রাণের গীটার’

প্রাণের গীটার
নতুন গান3 years ago

মাহফুজ ইমরানের‌ এক বছরের সাধনার ফসল ‘প্রাণের গীটার’ (ভিডিও)

কণ্ঠশিল্পী শাহজাহান শুভ
সৃজন মিউজিক3 years ago

শাহজাহান শুভ’র ‘কথামালা’ গান অন্তর্জালে

ওমরসানী, শাকিব খান ও জায়েদ খান
বিনোদন3 years ago

শাকিব খানের কাছে ক্ষমা চাইলেন জায়েদ খান

নতুন গান3 years ago

রোহিঙ্গাদের নিয়ে গান গাইলো অবস্‌কিওর

সৃজন মিউজিক3 years ago

প্রকাশ হলো ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির অরিজিত সিংয়ের সেই গান

ব্যান্ড সঙ্গীত3 years ago

শাকিরার নতুন মিউজিক ভিডিও ‘পেরো ফিয়েল’

মিউজিক ভিডিও3 years ago

তানজীব সারোয়ারের নতুন গান

মিউজিক ভিডিও3 years ago

ইউটিউবে কুমার বিশ্বজিতের নতুন গান ‘জোছনার বর্ষণে’

Trending