Connect with us

সৃজন মিউজিক

স্মৃতির পাতায় লাকী আখান্দ

Published

on

কিংবদন্তী সুরকার-শিল্পী লাকী আখন্দ্

রিপন চৌধুরী :

জন্মদিনে লাকী আখান্দকে স্মরণ করেছেন দেশের বেশ কয়েকজন গুনি শিল্পী, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক, গীতিকবিসহ সঙ্গীতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। তারা লাকী আখান্দের সঙ্গীত নিয়ে কথা বলেছেন। স্মৃতিচারণ করেছেন। তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাতও কামনা করেছেন। সৃজনমিউজিকবিডি ডটকমের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন নিজেদের প্রতিক্রিয়া।
কুমার বিশ্বজিৎঃ

কন্ঠ মাধুর্য আর তারুণ্যকে জয় করে সঙ্গীতকে যে ক’জন লালন করে চলেছেন,তাদের একজন কুমার বিশ্বজিৎ। এক সাথে পথ চলা লাকী আখান্দ সম্পর্কে তিনি বলেন,আমি ঢাকায় আসার পর লাকী ভাইয়ের বাসাতেই দেড় মাস কাটিয়েছি।তখন হ্যাপী ছিলো। লাকী ভাই থাকতেন খাটে আমি আর হ্যাপী ফ্লোরে। অনেক শেখা হয়েছে,জানা হয়েছে। ‘সব কথা বলো তবু কিছুই বলনা’ লাকী ভাইয়ের এই গানটিই প্রথম গেয়েছি বিটিভি’তে। আত্মিক একটা বন্ধন ছিলো তাঁর সাথে।কখনো বিরক্ত বা রাগ হতে দেখিনি।লাকী ভাই একটা কথা আমাকে অনেক বলেছেন আমার উত্তরসূরী তুমি হতে পারবে,আদর্শ বহন করে যদি চলতে পারো। আমার গানের প্রতি যত্নশীলতা দেখেই হয়তো বলতেন। অনেক গান করেছি। ‘যেখানেই সীমান্ত তোমার’ গানটি আমাকে নতুন করে,নতুন বৈশিষ্টে পরিচিতি এনে দেয়,এতে সন্দেহ নেই। আমরা তাঁর কাছ থেকে কিছু নিতে পারলাম না। এটা আমার এখনকার অনুভূতি।আমি বলবো ক্ষণজন্মা এই মানুষটির শূণ্যতা কখনোই পূরণ হবার নয়।

 

সামিনা চৌধুরীঃ

শিল্পী সামিনা চৌধুরী অতীতের দিন গুলো স্মরণ করে বলেন, লাকী চাচা আমাদের আত্মার মানুষ। ছোটবেলা থেকেই তিনি আমাদের বাসায় আসতেন,আমাদের সাথে নিয়ে গান করতেন। লাকী চাচার গানের স্টাইলটা অন্য রকম ছিলো। তাঁর হারমনিয়াম বাজানোও ছিলো দেখার মত। সে সময় থেকেই বিশেষ করে কর্ডস,গাওয়ার ঢংটা আমি রপ্ত করার চেষ্টা করেছি। ৮৫ সালে আমি প্রথম বিটিভি’র কথা ও সুর অনুষ্ঠানে কাওসার আহমেদ চৌধুরীর লেখা ‘কবিতা পড়ার প্রহর’ ও ‘আমায় ডেকোনা’গান দু’টি গেয়েছি। তিনি ছিলেন আমাদের পরিবারের মানুষ। আমার বাবা লাকী চাচার সুরে গান করেছেন। শেষ সময়ে তিনি শুধু বলে গেছেন আমার গান গুলো গেয়ো,হ্যাপী টাচের সাথে থেকো,আমার মেয়েকে দেখে রেখো। আমি তাঁর কথা গুলো পালন করার চেষ্টা করবো। উনি কী ছিলেন আমরা বুঝি কেউ বুঝতেই পারিনি-আমি শুধু এ টুকুই বলবো।

 

মধু মুখার্জীঃ

ওপার বাংলার ব্যস্ত সঙ্গীত পরিচালক। তার গীটারের শুরুটা হয়েছিলো লাকী ও হ্যাপী আখান্দের হাত ধরেই। তিনি বলেন, স্কুল জীবনের শেষ দিকে লাকী আখন্দ্ ও হ্যাপী আখন্দের সাথে পরিচয় ঘটে পশ্চিম বঙ্গের দূর্গাপুরের একটি অনুষ্ঠানে। তাঁদের গিটার বাদন ও গানে মুগ্ধ হয়ে যাই।
এ প্রসঙ্গে মধু মুখার্জী স্মৃতি চারণ করে বলেন, স্প্যানিশ গিটার শেখার ব্যাপারে হ্যাপীর অবদান আমি ভুলবোনা কোনদিনও। আমার সারা জীবনের অনুপ্রেরণা লাকী আখন্দ্ ও হ্যাপী আখন্দ্। ওঁদের সঙ্গীতের গভীরতা আমাকে এতটাই বেশী টেনেছে যে, সে সময় আমি ওঁদের সাথে গৃহত্যাগী হতেও দ্বিধা করিনি।

 

ফাহমিদা নবীঃ

সাবলীল গায়কী দিয়ে শ্রোতা হৃদয় জয় করে নেয়া কন্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী ছিলেন লাকী আখান্দের পরিবারের সদস্যের মতই আপন। তিনি বলেন,কী বলবো? কত স্মৃতি,কত গান,কত অভিমান! কোনটা বলি! ছোট বেলার কথাই বেশি মনে পড়ে। আমাদের আজিমপুরের বাসায় রীতিমত গানের আসর বসতো। সেখানে লাকী চাচা,হ্যাপী চাচা ছিলেন অনিবার্য মধ্যমণি। লাকী চাচার অনেক গান ছোট বেলা থেকেই করেছি। তাঁর ভিতর একটি জিনিস খুঁজে পেয়েছি যে,তিনি ছিলেন ভীষণ রকম পারফেক্টশনিস্ট। একেকটা গান অনেকবার করে রিহার্সেল করাতেন। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তাঁকে একনিষ্ঠ দেখেছি গানে। মেজাজ বা মুড না থাকলে লাকী চাচা গানই করতেন না। তাঁর অকাল প্রয়াণে আমরা অনেক কিছু হারিয়েছি। আমরা হয়তো তাঁর যথাযত মূল্যায়নটা যথা সময়ে করতে পারিনি।##

 
সজীব দাসঃ

এ সময় যে ক’জন নতুন সঙ্গীত পরিচালক ভালো কাজ করছেন তাদের ভিতর সজীব দাস প্রথম সারির। লাকী আখান্দের ছাত্র ও হ্যাপী টাচ ব্যান্ডের সদস্য। তিনি বলেন, লাকী ভাই সব সময় বলতেন,কারো কথা,চালচলন নয়,তার আদর্শ ও ভালো দিকটা অনুসরণ করবে। আরেকটি কথা সবাইকেই বলতেন একজন সঙ্গীতকর হতে হলে আগে ভালো মানুষ হতে হবে।বিধাতার গড়া এই পৃথিবী অনেক সুন্দর। তা না হলে সেই সৌন্দর্য অনুভব করতে পারবেনা। আমার সব কাজেই লাকী ভাইয়ের প্রচ্ছন্ন ছায়া থাকে।আমি তার অনুসারী এ কথা বলতে কোন দ্বিধা নেই। আমার জীবনবোধ ও সঙ্গীতে তিনি মূর্ত হয়ে ওঠেন সব সময়।

 
গীতিকবি গোলাম মোর্শেদ :

লিখতে পারিনা কোন গান তুমি ছাড়া বা ভালোবেশে ভুল ছিলো যত… এই জনপ্রিয় গান গুলোর গীতিকবি গোলাম মোর্শেদ লাকী আখান্দের সাথে স্মৃতিময় দিন গুলো ভুলতে পারেন না। তিনি বলেন,লাকী ভাইয়ের সাথে আমার প্রথম পরিচয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগঠন সৃজন থেকে। তারপর অনেক অনুষ্ঠান এক সাথে করা। মাঝে অনেক বছর যোগাযোগ হয়নি সরাসরি। ৮০’র দশকের শেষ দিকে আবার এক সাথে কাজ করি। আমি কখনো ভাবিনি গান লিখতে পারবো। লাকী ভাইই আমাকে উদ্বুদ্ধ করেছেন। তিনি দেশের ক্রিকেটারদের গান উপহার দিতে চান। আমাকে লিখতে বললেন আমরা একসাথে বসে ‘হঠাৎ করে বাংলাদেশ’ গানটা করে ফেললাম। বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশের সাফল্য তাঁকে দারুণ ভাবে প্রাণিত করেছিলো বলেই ঐ গানটি তিনি উপহার দিয়েছেন। আমার গীতিকবি হওয়ার পিছনে সমস্ত অবদান লাকী ভাইয়ের।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Dhaka Attack Unreleased Song

Advertisement
কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী
সৃজন মিউজিক2 years ago

কাজী শুভর গানে কলকাতার পল্লবী কর ও প্রেম কাজী (ভিডিও)

Praner Giutar
নতুন গান3 years ago

ভালোবাসা দিবসে দুই বাংলার মিশ্রণে ‘প্রাণের গীটার’

প্রাণের গীটার
নতুন গান3 years ago

মাহফুজ ইমরানের‌ এক বছরের সাধনার ফসল ‘প্রাণের গীটার’ (ভিডিও)

কণ্ঠশিল্পী শাহজাহান শুভ
সৃজন মিউজিক3 years ago

শাহজাহান শুভ’র ‘কথামালা’ গান অন্তর্জালে

ওমরসানী, শাকিব খান ও জায়েদ খান
বিনোদন3 years ago

শাকিব খানের কাছে ক্ষমা চাইলেন জায়েদ খান

নতুন গান3 years ago

রোহিঙ্গাদের নিয়ে গান গাইলো অবস্‌কিওর

সৃজন মিউজিক3 years ago

প্রকাশ হলো ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির অরিজিত সিংয়ের সেই গান

ব্যান্ড সঙ্গীত3 years ago

শাকিরার নতুন মিউজিক ভিডিও ‘পেরো ফিয়েল’

মিউজিক ভিডিও3 years ago

তানজীব সারোয়ারের নতুন গান

মিউজিক ভিডিও3 years ago

ইউটিউবে কুমার বিশ্বজিতের নতুন গান ‘জোছনার বর্ষণে’

Trending